অনলাইন ডেস্ক

পাকিস্তানে তাবলিগ জামাতের ২০ হাজার সদস্যকে কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে দেশটির সরকার। গত মাসে রাইভেন্ড মারকাজে একটি ইজতেমায় যোগ দেওয়া প্রায় সব মুসুল্লিকেই কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে বরে খবর আল জাজিরার।

খবরে বলা হয়, মারকাজের ওই জমায়েতে অংশ নেওয়া আরও কয়েক হাজার মুসল্লিকে খুঁজছে প্রশাসন। গত ১০ মার্চ থেকে রাইভেন্ডে তাবলিগ জামাতের পাঁচ দিনের একটি ইজতেমায় কয়েক হাজার দেশি-বিদেশি মুসল্লি অংশ নিয়েছিলেন। সেখান থেকে ফেরা চার জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে বলে সিন্ধুর স্বাস্থ্য বিভাগ নিশ্চিত করেছে। এরপর থেকেই মুসল্লিদের কোয়ারেন্টাইনে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তাবলিগের দায়িত্বশীলদের এমন পরিস্থিতিতে ইজতেমা আয়োজন না করার অনুরোধ জানিয়েছিলেন পাঞ্জাব সরকার । কিন্তু এই অনুরোধ উপেক্ষা করে ইজতেমার আয়োজন করেন তারা। আর পরবর্তিতে লাহোরের ওই ইজতেমায় অংশ নেওয়া কমপক্ষে ৫৩০০ তাবলিগি সদস্যকে কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পখতুনখাওয়া কর্তৃপক্ষ।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে ওই অঞ্চলের মুখপাত্র আজমল ওয়াজির বলেছেন, এই প্রদেশের আরো হাজার হাজার তাবলিগি মুসল্লি অন্য প্রদেশে আটকা পড়েছে। কারণ, দেশের বড় বড় মহাসড়কগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

সংবাদটি সম্পর্কে আপনার মন্তব্য

Please enter your comment!
আপনার নাম লিখুন